ব্রণ ও ব্রণের দাগ দূর করার জন্য নিম পাতার পেষ্ট ও মুলতানি মাটির ফেসপ্যাক

0
108
মুলতানি মাটির ফেসপ্যাক

সৌন্দর্য মন্ডিত চেহারায় ব্রণকে ‘’ চাঁদের কলঙ্ক ‘’বলা যেতে পারে। আপনারা নিশ্চয় এ ব্যাপারে সবাই আমার সাথে একমত হবেন ?

আর বিভিন্ন ভাবে চেষ্টার পর চেষ্টা ,চিকিৎসার পর চিকিৎসা ,এটা সেটা করার পরও যখনি এই ব্রণ আপনার সৌন্দর চেহারাকে ছেড়ে যায় না তখনি শুরু হয় যন্ত্রণা আর অশান্তির । চেহারার ব্রণ নিয়ে যারা এরকম ওৎকণ্ঠায় আছেন তাদের সমস্ত ক্যামিকেলযুক্ত প্রসাধনী দিয়ে প্রচেষ্টা থামিয়ে দিন।

আর সভ্যতার শুরু থেকে আজ অবধি রূপচর্চায় যার কদর এতটুকু কমেনি তা হল প্রকৃতির দান প্রাকৃতিক উপাদান। আমাদের সকলের উচিত প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে নিজের চেহারার সৌন্দর্য বৃদ্ধি ও সমস্যার সমাধান করা। এই জন্য আমি আপনাদের শেয়ার করছি ত্বকের ব্রণ ও ব্রণের দাগ দূর করার জন্য নিম পাতার পেষ্ট  ও মুলতানি মাটির ফেসপ্যাক। এর সাহায্যে আপনারা ত্বকের ব্রণ ও ব্রণের দাগ দূর করতে পারেন।

চলুন প্যাকটি তৈরি করে নিই।

নিম পাতার পেষ্ট ও মুলতানি মাটির ফেসপ্যাকঃ

ব্রণ দূর করার উপায়

ফেসপ্যাক তৈরির প্রয়োজনীয় উপাদানঃ

  • নিম পাতার পেষ্ট   –  ২টেবিল চামচ
  • মুলতানি মাটি       – ১ টেবিল চামচ
  • হলুদ গুড়া           – ১/২টেবিল চামচ
  • গোলাপজল         – ৩-৪ টেবিল চামচ
  • মধু                 – ১ টেবিল চামচ

প্যাকটি কিভাবে তৈরী ও ব্যবহার করবেনঃ

ধাপঃ

১) একটি পরিস্কার বাটিতে সবগুলো উপাদান একসাথে নিয়ে খুব ভাল করে নরম পেষ্ট তৈরী করুন।

২) একটি তুলার প্যাড কুসুম গরম পানিতে ভিজিয়ে মুখ মুছে নিন।

৩) এবার তৈরী করা প্যাকটি ঠোঁট ও চোখ ছাড়া সম্পূর্ণ মুখে লাগান।প্যাকটি লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন।

ব্রণ ও ব্রণের দাগ দূর করার ফেসপ্যাক

৪) ২০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

কাজ করার কারণঃ

মুলতানি মাটিঃ

মুলতানি মাটির মধ্যে থাকা উপাদানগুলো ত্বকের গভীরে প্রবেশ করে ত্বক হতে অতিরিক্ত তৈল,ময়লা তুলে এনে ত্বককে গভীর থেকে পরিস্কার করে। এছাড়াও এটি ত্বকের মৃতকোষ সরিয়ে ফেলে এবং ত্বকে জীবাণু আসতে দেয় না।

গোলাপজলঃ

গোলাপজল ত্বকে টোনার ও ময়শ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে।

মধুঃ

ব্রণ দূর করার উপায়

মধুর মধ্যে থাকা অ্যান্টি – ব্যাকটেরিয়াল উপাদান ত্বককে ব্রণ সৃষ্টিকারী জীবাণু ও অন্যান্য জীবাণুর আক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করায় ব্রণ, ব্রণের মত বিচি, এই উপসর্গ গুলো মুখে আসতেই পারেনা।এর কারণে ত্বক হয়ে ওঠে ব্রণমুক্ত।

নিম পাতার পেষ্টঃ

নিম পাতার মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমানে অ্যান্টি – ব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টি-সেফটিভ ক্ষমতা। এই ক্ষমতা ত্বক হতে যে কোন জীবাণুকে ধ্বংস করে দিয়ে ত্বককে জীবাণু মুক্ত করতে পারে নিমিশেই। এটি ত্বক হতে ব্রণ সৃষ্টিকারী জীবাণুকে মেরে ফেলে ত্বককে সম্পূর্ণভাবে ব্রণের ও অন্যান্য জীবাণুকে মেরে ফেলে ত্বককে ব্রণমুক্ত করে তুলে।

নোটঃ

১)সপ্তাহে ২ বার ব্যবহার করতে পারবেন।

ত্বক হতে ব্রণ ও ব্রণের দাগকে পুরুপুরি দূর করার জন্য এই প্যাকটিকে ব্যবহার করুণ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here