৭ দিনে রুক্ষতা ও ব্রণের দাগ দূর করে ফর্সা ত্বক পাবার ফেসপ্যাক

0
666
ব্রণ দূর করার উপায়

আমাদের ত্বক রুক্ষ হলে ও ত্বকে ব্রণ দেখা দিলে ত্বকের সুন্দর্য হারিয়ে যায়। তাই আজকে আমি আপনাদের সঙ্গে অসাধারণ একটি ফেসপ্যাক শেয়ার করব যেটির ব্যবহারে মাত্র ৭ দিনে ন্যাচারালি ত্বক মসৃণ, দাগ মুক্ত ও ফর্সা হয়ে উঠবে । এটি ত্বকের রুক্ষতা ও ব্রণের দাগ দূর করে ফর্সা ত্বক পাবার ফেসপ্যাক।

চলুন আমরা ফেসপ্যাকটি কিভাবে তৈরি করতে হবে তা জেনে।

রুক্ষতা ও ব্রণের দাগ দূর করে ফর্সা ত্বক পাবার ফেসপ্যাক তৈরি ও ব্যবহারের নিয়মঃ

প্রয়োজনীয় উপাদানঃ

  • ছাঁকা ময়দা – ১ টেবিল চামচ
  • বাদাম তেল – ২ চা চামচ
  • ডিমের কুসুম  – ১টি ও
  • গোলাপজল – ১ চা চামচ
কালো দাগ দূর করার উপায়

তৈরির ধাপঃ

  • প্রথমে একটি পরিষ্কার বাটি নিন।  
  • এরপর এর মধ্যে সব উপকরণ একসাথে মিক্স করুন।
  • এরপর প্যাকটি মুখে এপ্লাই করার আগে কুসুম গরম পানি দিয়ে আপনার মুখ ভাল করে পরিষ্কার করে নিন।
  • এরপর তুলার প্যাড অথবা ব্রাশের সাহায্যে প্যাকটি মুখে এপ্লাই করুন।
  • প্যাকটি এপ্লাই করার পর 20 মিনিট অপেক্ষা করুন।
মুলতানি মাটি ব্যবহারের নিয়ম
  • 20 মিনিট পর প্যাকটি মুখে শুকিয়ে গেলে এটি হাত দিয়ে ঘষে তুলে ফেলুন।
  • এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

কাজ করার কারণঃ

ময়দাঃ

ময়দাতে আছে ক্লিনজিং প্রপার্টি যা ত্বকের ডার্ক সার্কেলসকে রিমুভ করে ত্বককে ফর্সা করে। এছাড়া ময়দা আরও রয়েছে মিনারেলস যা ত্বককে সুন্দর ও মসৃণ করে তুলবে।

বাদাম তেলঃ

বাদাম তেল এ আছে ভিটামিন ই এ ও বি এর সমন্বয়ে তৈরি এন্টি-অক্সিডেন্ট প্যাক যা ব্রণ ওঠা প্রতিরোধ করে ও ত্বককে উজ্জ্বল করে।

ডিমের কুসুমঃ

ডিমের কুসুমে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন ও ভিটামিন এ । ডিমের প্রোটিন ত্বকের টিস্যুর জন্য ব্লক তৈরি করে। ডিমের ভিটামিন-এ ও জিংক ত্বকের কোঁচকানো নিরাময় করে।

গোলাপজলঃ

গোলাপজল ত্বকে টোনার ও ময়শ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে।  

নোটঃ

১। অবশ্যই খেয়াল রাখবেন। পানি যাতে খুব বেশি গরম না হয়। পানি খুব গরম হলে ত্বকের ক্ষতি হতে পারে।

২। ভাল রেজাল্ট পেতে সপ্তাহে দু-তিনবার করে ব্যবহার করুন।

বন্ধুরা, আপনারা এই প্যাকটি ব্যবহার করার পর ত্বকের মধ্যে অনেক পার্থক্য দেখতে পারবেন। মাত্র একবার ব্যবহারে ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃণ হয়েছে যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here