বাদামের উপকারিতা

0
42
বাদামের উপকারিতা

পার্কে যায় বা কোথাও বেড়াতে যাই না কেন…পাশের সঙ্গী যেই থাকুক না কেন বাদাম কিন্তু আমাদের সবসময় হাতের কাছেই থাকে। যেকোনো অবসর সময়ে,বা  একলা কারো অপেক্ষার প্রহর গুনতে বাদামের যেন জুড়ি নেই।

বাদাম শুধু আমাদের অবসরের সঙ্গী বললে ভুল হবে, বাদাম আমাদের কি কি উপকার করে থাকে তা অনেকেরই অজানা। তাই আজ আমার আলোচনার বিষয় হচ্ছে আমাদের জন্য বাদামের উপকারিতা কি কি রয়েছে তা সম্পর্কে ধারণা দেওয়া।  

বাদামের উপকারিতাঃ 

বাদাম আমাদের শরীরের জন্য অনেক উপকারী একটি উপাদান। শরীরের বিভিন্ন ধরনের ভিটামিনের চাহিদা মেটাতে বাদামের কার্যকারিতা অনেক বেশি। বাদামে এমন কিছু গুরুত্বপূর্ণ উপাদান রয়েছে যা আমাদের শরীরের বেশ কিছু জটিল সমস্যা সমাধান করতে কাজ করে থাকে।  

বাদামের মধ্যে থাকা ভিটামিন সমূহঃ 

শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় বিশেষ কিছু উপাদান যা বাদামের মধ্যে নিহিত। বিভিন্ন সময়ে শরীরের প্রয়োজনীয় উপাদান সমূহ যেমন ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, নাইট্রোজেন, ভিটামিন বি কমপ্লেক্স, অ্যামাইনো এসিড, ওমেগা ফ্যাটি এসিড, প্রভৃতি গুরুত্বপূর্ণ ভিটামিন জাতীয় উপাদান বাদামের মধ্যে থাকে। 

তাই বাদাম যদি আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় একটি খাবারের অংশ হিসেবে আমরা ধরে নিয়ে থাকি, তাহলে আমাদের শরীরের অপ্রত্যাশিত রোগগুলো থেকে আমরা দূরে থাকতে পারবো। 

বাদাম খাওয়ার মাধ্যমে স্মৃতিশক্তি প্রবণতা বাড়েঃ

আমেরিকান এক গবেষণার মাধ্যমে জানা যায়, যেকোনো শিক্ষার্থী যদি পরীক্ষা দিতে যাওয়ার আগে বাদাম খেয়ে যায় তাহলে তার স্মৃতি শক্তির পরিমাণ অন্য  ছাত্রছাত্রীদের তুলনায় অনেক বেশি থাকে।

সুতরাং এখান থেকেই আমেরিকার এক গবেষক প্রতিবেদন আকারে প্রকাশ করেন যেখানে বলা হয়ে থাকে, বাচ্চাদের বাদাম খাওয়ার মাধ্যমে তাদের স্মৃতি শক্তির পরিমাণ বাড়ে।

বাদাম খাওয়ার মাধ্যমে হাড়ের কাঠিন্যতা শক্ত হয়ঃ

যেহেতু বাদামের মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফসফরাস জাতীয় উপাদান, যেটা আমাদের শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি পূরণ করতে কাজ করে থাকে। সাথে সাথে আমাদের হাডের কাঠিন্যতা বাড়ায়। তাই ছোটবেলা থেকে যদি বাদাম খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তোলা যায় তাহলে ওই শিশুর শারীরিক গঠন অনেক স্বাস্থ্য সম্মত হয়।

ক্যান্সারের মতো রোগ প্রতিরোধ করতে বাদামের উপকারিতাঃ

বাদামের মধ্যে থাকা এন্টি অক্সিডেন্ট উপাদান শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি ক্যানসারের কোষ কে ধ্বংস করতে অনেক বেশি ভূমিকা রাখে। তাই যদি আমরা আমাদের খাবারের তালিকায় প্রতিদিন অল্প হলেও বাদাম রাখতে পারি তাহলে আমরা ক্যানসারের মতো দুরারোগ্য রোগ থেকে দূরে থাকতে পারব।

বাদাম খাওয়ার মাধ্যমে শরীরের পুষ্টি গুণ বাড়েঃ 

বন্ধুরা নিয়মিত যদি বাদাম খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে পারি, তাহলে এটি আমাদের শরীরের পুষ্টি গুণ বাড়িয়ে দিয়ে শরীরকে অনেক বেশি স্বাস্থ্যসম্মত রাখে।  যেহেতু বাদামের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে আয়রন, ফসফরাস ও ম্যাগনেসিয়াম এর উপস্থিতি রয়েছে তাই শরীরের পুষ্টি গুন বাড়াতে বাদাম খাওয়ার কোন বিকল্প নেই। 

সেক্স পাওয়ার বাড়াতে বাদাম খাওয়ার উপকারিতাঃ

যাদের হরমোন সমস্যার কারণে যৌনতায় অক্ষম থাকে,তারা যদি নিয়মিতভাবে বাদাম খেতে পারে, তাহলে তাদের যৌন উদ্দীপনা দ্বিগুণ পরিমাণে ফিরে আসে। তাই সেক্স পাওয়ার বাড়াতে বাদাম খাওয়ার ভূমিকা অতুলনীয়।

সুতরাং বাদামকে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য না করে বাদামের উপকারিতা গুলো মাথায় রেখে নিয়মিত খাবারের তালিকায় বাদাম খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। এতে করে আমরা যেরকম সুস্বাস্থের অধিকারী হব তেমন করে ভবিষ্যতে বিভিন্ন রোগ থেকে দূরে থাকতে পারবো।  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here