যারা খুব বেশি ব্যস্ত তাদের জন্য ত্বক ফর্সা করার অত্যন্ত কার্যকরী ফেসপ্যাক

0
20

মানুষ মাত্রই সুন্দরের পূজারী। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে আমরা সকলেই উজ্জ্বল এবং ফর্সা ত্বক প্রাপ্তির আশা করে থাকি। তাই সকলেই বিভিন্নভাবে রূপচর্চা করে থাকি।

তবে বিভিন্ন সময়ে বাজারের প্রসাধনী আসল নকল বিভেদ বুঝতে না পেরে অনেকেই নিজেদের ত্বকের ক্ষতি করে ফেলি।

তাই রূপচর্চায় আর কেমিক্যালযুক্ত নকল প্রসাধনীর ব্যবহার না করে সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপায়ে ফেসপ্যাক দিয়ে নিজেদের ত্বককে উজ্জ্বল এবং ফর্সা করে তুলা যায়।

যারা অতিরিক্ত ব্যস্ততায় সময় এবং সুযোগের অভাবে পার্লারে গিয়ে প্রাকৃতিক উপায়ে রূপচর্চা করতে পারেন না তাদের জন্য অত্যন্ত কার্যকরী একটি ফেসপ্যাক শেয়ার করছি।

এই ফেসপ্যাক দিয়ে খুব অল্প সময়ের মধ্যে বাড়িতে বসেই ত্বকের যত্ন নিয়ে ত্বককে উজ্জ্বল ও ফর্সা করতে পারবেন ।

তাহলে চলুন বন্ধুরা দেখে নেয়া যাক উজ্জ্বল ফর্সা এবং আকর্ষনীয় ত্বকের জন্য অত্যন্ত কার্যকরী ফেসপ্যাক তৈরির নিয়ম।

ফর্সা হওয়ার অত্যন্ত কার্যকরী ফেসপ্যাকঃ  

ত্বককে দ্রুত সময়ে উজ্জ্বল করে তুলতে এবং ফর্সা ও আকর্ষণীয় করে তুলতে এই ফেসপ্যাক খুব খুব কার্যকর।

উপকরণ সমূহঃ

৩ চা চামচ অ্যালোভেরার জেল।

২ টবিল চামচ চন্দন পাউডার।

১ চা চামচ লেবুর রস।

১ চা চামচ মধু।

পরিমাণমতো গোলাপজল।

তৈরির ব্যবহার পদ্ধতিঃ

সবগুলো উপকরণ একটি পরিষ্কার পাত্রে নিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে ঘন মিশ্রণ তৈরী করে নিন। তাহলেই তৈরি হয়ে যাবে অত্যন্ত কার্যকরী ত্বক ফর্সাকারী অ্যালোভেরার ফেসপ্যাক।

এরপর পরিষ্কার নরম তুলা অথবা মুখের ব্রাশের সাহায্যে ফেসপ্যাকটি সম্পূর্ণ মুখে ভালোভাবে স্ক্রাব করে লাগিয়ে দিন।

5 থেকে 7 মিনিট ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে আলতোভাবে ত্বক ম্যাসাজ করে নিন।

এরপর15 থেকে 20 মিনিট ফেসপ্যাকটি শুকিয়ে যাবার জন্য সময় নিন।

এরপর কুসুম গরম জলে তুলা ভিজিয়ে ঘষে ঘষে মিশ্রণ টি তুলে নিন।

সবশেষে ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে নিন।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ

১। ফেসপ্যাকটি বিদ্যমান কোন উপকরণ আপনার ত্বকের জন্য এলার্জিক হলে তা ব্যবহার করা বন্ধ করুন।.

২। ফেসপ্যাক মুখে লাগিয়ে রোদে, গরম স্থানে এবং ধুলাবালি যুক্ত স্থানে যাবেন না।

৩। ত্বক ম্যাসাজ করার সময় অতিরিক্ত প্রেসার দিবেন না।

৪। অপ্রাপ্তবয়স্কদের ত্বকের ফেসপ্যাক ব্যবহার করবেন না।

৫। ফেসপ্যাক তৈরি করে ফ্রিজে সংরক্ষণ করে ব্যবহার করবেন না।

৬। স্থায়ীভাবে উজ্জ্বল এবং ফর্সা হতে সপ্তাহে অন্তত তিন থেকে চারবার ফেসপ্যাকটি ব্যবহার করুন।

ফেসপ্যাকে ব্যবহৃত বিভিন্ন ধরনের উপাদান ভেষজ উদ্ভিদের দোকান এবং প্রসাধনীর দোকানে পাওয়া ৭। যাবে।

উপরে উল্লেখিত নির্দেশিত পদ্ধতি অনুসরণ করে ঘরে বসে যেকেউ প্রাকৃতিক ভাবে ফেসপ্যাকটি তৈরি করে ব্যবহার করতে পারেন। ত্বকের যত্নে নকল কেমিক্যাল যুক্ত প্রসাধনী ব্যবহার বাদ দিয়ে প্রাকৃতিক উপাদান সম্বলিত ফেসপ্যাক ব্যবহার করে নিজের ত্বককে উজ্জ্বল মসৃণ আকর্ষণীয় এবং ফর্সা করে তুলুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here