খুশকি দূর করবে,চুল পড়া বন্ধ করে চুলের সকল সমস্যা দূর করবে টকদয়ের হেয়ার মাস্ক

0
200

রুপচর্চায় অপরিহার্য একটি উপাদানের নাম টকদই । ত্বকের যত্ন থেকে শুরু করে রুপচর্যার প্রতিটি ক্ষেত্রে টকদয়ের ব্যবহার । আর চুলের যত্নে টকদয়ের ভূমিকা এক কথায় বলে শেষ করা যাবে না ।

 চুল পড়া বন্ধ করা, খুশকি দূর করা থেকে শুরু করে সব ধরনের সমস্যার সমাধান দিয়ে থাকেন টকদই ।  আজ আমি আপনাদের সাথে টকদই এর একটি হেয়ার মাস্ক শেয়ার করছি । এই হেয়ার মাস্কটি চুলের সব ধরনের সমস্যা দূর করে চুলকে ঝলমলে সুন্দর করে তুলবে । 

চলুন হেয়ার মাস্কটি তৈরি করে নিই।

টকদইয়ের হেয়ার মাস্কঃ

টকদইয়ে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি,১২, প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, রিবোফ্লাভিন,। যা আমাদের চুলের জন্য অত্যন্ত কার্যকরী। টক দইয়ের হেয়ার মাস্ক চুলের শুষ্কতা সম্পূর্ণরূপে দূর করে  চুলের স্বাভাবিক আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। সেইসাথে মাথার ত্বক খুশকিমুক্ত রাখে, চুল ঝরে পড়া  সম্পূর্ণরূপে রোধ করে। নিয়মিত টক দইয়ের হেয়ার মাস্ক ব্যবহারে চুল হয়ে উঠে স্বাস্থ্যজ্জ্বল , মসৃণ এবং আকর্ষণীয়।

যা যা লাগবেঃ

১কাপ টকদই

১ চামচ মধু

১ টেবিল-চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনেগার

হেয়ার মাস্ক তৈরির প্রক্রিয়াঃ

একটি পরিষ্কার পাত্রে সবগুলো উপকরণ নিয়ে ভালোভাবে গুলিয়ে নিয়ে তৈরি করে নিন টক দইয়ের অত্যন্ত কার্যকরী একটি হেয়ার মাস্ক।

টক দইয়ের হেয়ার মাস্ক চুলে ব্যবহারের নিয়মঃ

পরিষ্কার মাথায় সম্পূর্ণ চুলে, মাথার ত্বকে, চুলের গোড়ায় ভালোভাবে হেয়ার ব্রাশের সাহায্যে হেয়ার মাস্ক টি লাগিয়ে নিন।

তিন থেকে পাঁচ মিনিট আঙুলের সাহায্যে চুলের গোড়ায় আলতো ভাবে ম্যাসাজ করুন।

এরপর শাওয়ার ক্যাপ পরে নিন বা পরিষ্কার তোয়ালে দিয়ে চুল সমেত মাথা বেঁধে নিন।

25 থেকে 30 মিনিট অপেক্ষা করুন।

এরপর প্রথমে কুসুম গরম জল দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।  এবং সবশেষে ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে মাথা ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিন।

নোটঃ

১। স্থায়ীভাবে চুলের শুষ্কতা দূর করে স্বাস্থ্যজ্জ্বল, মসৃণ এবং আকর্ষনীয় চুল পেতে সপ্তাহে অন্তত দুবার টক দইয়ের হেয়ার মাস্ক চুলে ব্যবহার করুন।

২। আপনার চুলের প্রয়োজন অনুযায়ী উপকরণের পরিমাণ বাড়িয়ে বা কমিয়ে নিতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here