কলার খোসার উপকারিতা

0
19
কলার খোসার উপকারিতা

একটা সামান্য জিনিস কিভাবে অসামান্য হয়ে ওঠে, তার উপকারিতা না জানলে আমরা বুঝতেই পারিনা। হ্যাঁ, বন্ধুরা আজকে ঠিক সেরকম একটা সাধারন বিষয় নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করবো। যার উপকারিতার কথা শুনলে এই সাধারন জিনিসটার আপনাদের কাছে অসাধারণ হয়ে ধরা দিবে।  

নিজেদের স্বাস্থ্য সচেতনতার জন্য কলা কিন্তু আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় একটা সঙ্গী। কিন্তু কলার খোসার উপকারিতা কোন অংশে কম নয়। আজ আপনাদেরকে কলার খোসার উপকারিতা গুলো বলব। 

কলার খোসার উপকারিতাঃ  

আমরা অনেকেই কলার খোসায় যে উপকারিতা থাকতে পারে সে বিষয়ে জানিনা। কলার খোসায় ভিটামিন এ, মিনারেল, পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন সি, ভিটামিন b6,ভিটামিন b12 প্রভৃতি উপাদান থাকে। তাই এটি আমাদের ত্বকের ক্ষেত্রে এবং চুলের ক্ষেত্রে অনেক বেশি অবদান রাখে।

স্কিনের বলিরেখা দূর করতে কলার খোসার উপকারিতাঃ

পার্লারে যাওয়ার সময় হচ্ছে না বলে যারা নিজেদের ত্বকের যত্ন নিতে পারছেন না, যার কারণে আপনার ত্বকে বিভিন্ন ধরনের বলিরেখা দেখা যাচ্ছে। এই সমস্যা আপনি ঘরে বসেই কিন্তু সমাধান করতে পারেন। 

তার জন্য আপনাকে একটা কলার খোসাকে ৩-৪ টুকরো করে ফ্রিজে ১০-১৫ মিনিটের জন্য রেখে দিতে হবে। এরপর ফ্রিজ থেকে বের করে সে কলার খোসার টুকরোগুলো আপনার মুখে ভালভাবে মাসাজ করুন।

এভাবে যদি আপনি প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে কলার খোসা ব্যবহার করেন, তাহলে আপনার ত্বকের বলিরেখা খুব তাড়াতাড়ি দূর হয়ে যাবে।

ব্রণের দাগ বা কালচে ভাব দূর করতে কলার খোসার উপকারিতাঃ  

বন্ধুরা,যাদের মুখে ব্রনের কালো দাগ রয়ে যায় বা মুখে কাল ভাব দেখা যায়, তারা ত্বকের যত্নে কলার খোসা ব্যবহার করতে পারবেন। 

এই ক্ষেত্রে বিশেষ করে হলুদ কলার খোসা আমাদের ত্বকের জন্য বেশি উপকারী। আপনি যদি কলার খোসাকে কয়েক টুকরা করে কেটে তাতে অল্প পরিমাণ এলোভেরা জেল, সাথে ২ চা চামচ মধু দিয়ে ব্লেন্ডার করে, সে পেষ্ট মুখে লাগান। তাহলে আপনার ত্বকে ব্রণের প্রবণতা কমে যাবে এবং ত্বক অনেক বেশি উজ্জ্বল ও সুন্দর দেখাবে। 

মানসিক অবসাদ কমাতে কলার খোসা খাওয়ার উপকারিতাঃ

অনেকেই আছেন যারা একটু কাজ করার পরে ক্লান্ত হয়ে যায় বা মানসিক অবসাদে ভোগেন। তাদের জন্য কলার খোসা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই জন্য আপনাকে কলার খোসা কেটে কয়েক টুকরা করে ২ গ্লাস পরিমাণ পানিতে কলার খোসার টুকরোগুলো ফেলে দিয়ে ১৫-২০ মিনিট সিদ্ধ করুন সিদ্ধ করে পানি খেয়ে ফেলুন সাথে সাথে আপনার মানসিক অবসাদ কেটে যাবে।

দাঁত পরিষ্কার করতে কলার খোসার উপকারিতাঃ

যারা প্রতিদিন দুইবার ব্রাশ করার পরেও দাঁতের হলুদ ভাব যাচ্ছেনা,তারা কিন্তু দাঁত পরিষ্কার করার জন্য কলার খোসার ব্যবহার করতে পারেন। কলার খোসা ছিলে যদি আপনি কলার খোসার ভেতরের অংশ দাঁতের মধ্যে ৭-১০ মিনিট ঘষেন, এরপরে আপনি দেখবেন আশ্চর্যজনকভাবে আপনার দাঁত একেবারে ফর্সা ধবধবে হয়ে গেছে।

চোখের নিচের কালো দাগ দূর করতে কলার খোসার উপকারিতাঃ  

যারা দীর্ঘদিন চশমা পড়ে থাকেন বা ঘুম কম হওয়ার কারণে অথবা অন্য কোন কারণে চোখের নিচে কালো দাগ পড়ে গেছে, অনেক কিছু ব্যবহার করার পরেও সমাধান পাচ্ছেন না। তারা কিন্তু নিশ্চিন্তে কলার খোসা ব্যবহার করতে পারেন। 

এজন্য আপনাকে যা করতে হবে কলার খোসা ৩-৪ টুকরা করে ফ্রিজে রেখে দেবেন ১০ মিনিটের জন্য। এরপর ফ্রিজ থেকে বের করে কলার খোসার টুকরাগুলো চোখের নিচে দিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। এভাবে নিয়মিত করলে দুই থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যে আপনার চোখের নিচের কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

আশা করি, আমার উপরে প্রতিবেদনটি পরে আপনারা কলার খোসার উপকারিতা বুঝতে পেরেছেন। তাই কলার খোসাকে আর অবহেলায় ফেলে না দিয়ে নিজের ত্বকের যত্নে এবং শরীরের যত্নে এটির যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করুন।    

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here