উজ্জ্বল ও ফর্সা ত্বক পেতে কফির ফেসিয়াল করুণ।

0
3260
কফির ফেসিয়াল

আমাদের ত্বককে উজ্জ্বল ও ফর্সা রাখার জন্য আমাদের নিয়মিত ত্বকের যত্ন নেওয়া প্রয়োজন । আর ব্যস্ততার কারণে যদি ত্বকের নিয়মিত যত্ন নিতে না পারি তখন আমাদের মাসে অন্তত ফেসিয়াল করা দরকার । 

বন্ধুরা, আজকে আমি আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি স্কিন লাইটেনিং ফেসিয়াল । কফির ফেসিয়ালটি ত্বকের সমস্ত দাগকে দূর করে দিয়ে ত্বককে উজ্জ্বল ও ফর্সা করবে। 

এছাড়াও এটা আসলে কতটা ইফেক্টিভ তা জানবেন যখন আপনারা এটা ব্যবহার করবেন । চলুন ,কফির ফেসিয়ালটি কিভাবে তৈরি করবেন এবং এপ্লাই করবেন তা জেনে নিন ।

কফির ফেসিয়ালটি তৈরি ও ব্যবহারের নিয়মঃ 

এই ফেসিয়ালটিকে ৩ টি ভাগ করেছি

  • স্টেপ ১  – ক্লিনজিং
  • স্টেপ ২  – ফেসিয়াল মাস্ক 
  • স্টেপ ৩ – ময়েশ্চারাইজিং 

ব্যবহারের ধাপ বা নিয়মঃ

স্টেপ ১ -ক্লিনজিংঃ

  • ত্বককে পরিষ্কার করার জন্য আমাদের প্রয়োজন ক্লিনজার। তাই মুখে মাস্ক লাগানোর আগে ত্বককে ক্লিন করে নিতে হবে। 
মিশ্র ত্বকের যত্নে কফির ফেসপ্যাক
  • ত্বককে ক্লিন করার জন্য একটি লেবুকে স্লাইস করে কেটে নিয়ে মুখের উপর তিন থেকে পাঁচ মিনিট ম্যাসাজ করুন । ম্যাসাজ করার পর টিস্যু দিয়ে মুখ মুছে ফেলুন।  

স্টেপ ২-ফেসিয়াল মাস্কঃ

ফেসিয়াল মাস্ক তৈরি করার জন্য প্রয়োজনীয় উপাদানঃ

ত্বকের যত্নে টমেটোর উপকারিতা
  •  দু চামচ – টমেটো পেষ্ট 
  • এক চামচ – টকদই
  • এক চামচ – কপি পাউডার ও
  • হাফ চামচ – জিলেটিন পাউডার

ফেসিয়াল মাস্ক তৈরির ধাপঃ

  • মাস্ক তৈরি করার জন্য একটি পরিষ্কার বাটিতে সবগুলো উপাদান একসাথে নিয়ে ভাল করে মিক্স করে নিন।  
  • সব উপাদান একসঙ্গে ভালো করে মিশে গেলে মুখের উপর এপ্লাই করুন ।
  • মাস্কটি এপ্লাই করার পর ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন ।
  • ২০ মিনিট পর মুখ যদি টানটান হয়ে আসে তাহলে কুসুম গরম পানিতে সুতির কাপড় ভিজিয়ে আস্তে আস্তে ম্যাসাজ করে নিন। 
  • এরপর মুখ ধুয়ে ফেলুন ।

স্টেপ ৩ – ময়েশ্চারাইজিংঃ

  • ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করার জন্য একটি এলোভেরা পাতা থেকে এক টুকরা কেটে নিয়ে এর চামড়া তুলে নিয়ে ত্বকের উপর ৩ মিনিট ম্যাসাজ করুণ।  
  • অথবা আপনাদের ব্যবহারের যে কোন ময়েশ্চারাইজার ক্রিম এপ্লাই করুণ। 

 নোটঃ

১। যাদের মুখে এলার্জি আছে তারা লেবু দিয়ে ত্বককে ক্লিন করার পরিবর্তে গোলাপজল দিয়ে ত্বক পরিস্কার করবেন।  

২।  টমেটো পেষ্ট তৈরি করার জন্য একটি পাকা টমেটো পাকা টমেটো কে টুকরো টুকরো করে কেটে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। 

বন্ধুরা আপনারা এই ফেসিয়ালটিকে অবশ্যই বাড়িতে একবার ট্রাই করে দেখবেন । তাহলেই বুঝবেন এই ফেসিয়ালটি কতটা কার্যকরী ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here