ত্বককে উজ্জ্বল ও ফর্সা করতে এবং ত্বকের যত্নে কফির ফেসপ্যাক

0
6174
ত্বকের যত্নে কফির ফেসপ্যাক

বালিকা,কিশোরী কিংবা মহিলা সব বয়সের ,সব ধরণের ত্বকের সাথে সহজেই মানানসই বলে রূপচর্চা করার জন্য  অনেকে কফির বিকল্প খুজঁতে যান না।উজ্জ্বল,ফর্সা,মসৃণ কোমল ত্বক পেতে যুগ যুগ ধরে কপি দিয়ে রূপচর্চার প্রচলন হয়ে আসছে এর যাদুকরী শক্তির প্রভাবে।

কফির ফেসপ্যাক ব্যবহারে ত্বক প্রাকৃতিকভাবে তরুণ , উজ্জ্বল ও ফর্সা হয়ে ওঠার ফলে এবং ত্বকের যত্নে সকল ধরণের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পণ্যের সাথে তুলনা করলে কপির জনপ্রিয়তা ও কার্যকারিতা এ সকল পণ্যের চেয়ে এগিয়ে থাকে। আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব ত্বককে উজ্জ্বল ও ফর্সা করতে এবং ত্বকের যত্নে কফির কয়েকটি ফেসপ্যাক। সাথে সাথে এটাও জানিয়ে দিব সহজে কিভাবে প্যাকগুলো তৈরি করবেন ও ব্যবহার করে সুস্থ্য,উজ্জ্বল,দীপ্তময়,ফর্সা ত্বকের অধিকারী হতে পারবেন।

কফি-ও-মধুর-ফেসপ্যাক

১. ত্বককে উজ্জ্বল ও ফর্সা করতে টক দই ও কফির ফেসপ্যাক

নিজেকে আরেকটু সুন্দরী হিসেবে দেখা সকল নারীর গোপন মনোবাসনা। এই মনোবাসনাকে পূর্ণ করতে দই ও কফির এই ফেসপ্যাকটি সর্বোচ্চ ক্ষমতা রাখে। এই ফেসপ্যাকটি ত্বকের ব্রণ ও ব্রণের দাগ সহ সবধরণের দাগ দূর করে ত্বককে ময়শ্চারাইজ করবে। প্যাকটির ব্যবহার ত্বক হতে মৃতকোষ ও কালো রং দূর করে দিয়ে ত্বক উজ্জ্বল ও ফর্সা করে তুলে আপনাদের আরো বেশী সুন্দর করে তুলবে।

ফেসপ্যাক তৈরির প্রয়োজনীয় উপাদানঃ

  • কফি পাউডার – ২ চামচ
  • টক দই           – ২ চামচ
  • মধু                – ১ চামচ

ফেসপ্যাক কিভাবে তৈরি ও ব্যবহার করবেনঃ

কফির ফেসপ্যাক

ধাপঃ

. প্রথমে একটি পরিস্কার বাটিতে সবগুলো উপাদান এক সাথে নিয়ে খুব ভাল করে মিশিয়ে নিন।

.ব্রাশের সাহায্যে প্যাকটি  সারা মুখে লাগান । তবে ঠোঁট ও চোখে লাগাবেন না। প্যাকটি লাগিয়ে ১০ মিনিট অপেক্ষা করুণ।

. ১০ মিনিট পর ত্বকে সার্কুলার মুশনে ম্যাসাজ(হাতের আঙ্গুল দিয়ে মাজা) করুন ২-৩ মিনিট মত ।

.ম্যাসাজ করার পর প্যাকটি আরো ১০ মিনিট রেখে দিন।

. ১০ মিনিট পর পরিস্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

কাজ করার কারণঃ

টক দইঃ

দইয়ের মধ্যে থাকা ল্যাকটিক এসিড ত্বক হতে মৃতকোষ সরিয়ে ত্বককে ফর্সা করে তুলে ।এছাড়াও ভিটামিন বি-৫ ত্বক হতে কালো দাগ,বয়সের চাপ ও ব্রণের দাগ দূর করে দিয়ে ত্বককে দাগ মুক্ত করে তুলে।

মধুঃ

মধু ত্বকে প্রাকৃতিক ময়চশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে ত্বককে নমনীয়,কোমল ও উজ্জ্বল করে তুলে।মধুর মধ্যে আছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট যা ত্বকের কালচে ভাব দূর করে ত্বককে ভিতর থেকে ফর্সা করে তুলে।

মধু

কোন ত্বকের জন্য উপযোগীঃ

স্বাভাবিক ও শুস্ক ত্বকের জন্য বেশি কার্যকরি ।

নোটঃ

১)ভালো ফলাফলের জন্য সপ্তাহে ২ বার ব্যবহার করুণ।

২)টক দই বাড়িতে তৈরি করার জন্য কাঁচা তরল দুধকে পরিস্কার বাটিতে ১ রাত(১২ ঘন্টা) রেখে দিন ।

২.ত্বকের যত্নে অ্যালোভেরা ও কফির ফেসপ্যাকঃ

হারানো উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে দিতে অ্যালোভেরা ও কফির ফেসপ্যাকটি অসাধারণ কাজ করবে।এটি ত্বককে ভিতর থেকে পরিস্কার করে ত্বককে দাগমুক্ত করে আপনাকে এনে দিবে আপনার চির আকাঙ্কিত সৌন্দর্য্য।

প্রয়োজনীয় উপাদানঃ

  • কফি পাউডার       – ২ চামচ
  • অ্যালোভেরা জেল – ১ চামচ
  • অলিভ অয়েল      – ২ ফোঁটা

ফেসপ্যাক কিভাবে তৈরী ও ব্যবহার করবেনঃ

ত্বককে উজ্জ্বল ও ফর্সা করতে কফির ফেসপ্যাক

ধাপঃ

১) একটি পরিস্কার বাটিতে কফি পাউডার ও অ্যালোভেরা জেল ও হলুদ গুড়া নিয়ে খুব ভাল করে মিশিয়ে নিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন।

২)ত্বক পরিস্কার করে প্যাকটি মুখে  লাগান। প্যাকটি মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন।

৩) ১৫ মিনিট পর পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

কিভাবে কাজ করবেঃ

অ্যালোভেরা জেলঃ

অ্যালোভেরা প্রাকৃতিক ক্লিনজার হিসেবে বিখ্যাত । এটি ত্বককে খুব ভালভাবে ক্লিন ও ময়শ্চারাইজ করে । এর মধ্যে থাকা অ্যান্টি- অক্সিডেন্ট,ভিটা-কেরোটিন ও ভিটামিন ত্বকের বলিরেখা দূর করে ত্বকের দৃঢ়তা ও উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনে। এছাড়াও অ্যালোভেরার ভিটামন এ ত্বককে সুস্থ্য সবল ও আকর্ষণীয় করে তুলে।

অ্যালোভেরা জেল
অ্যালোভেরা জেল

কোন ত্বকের জন্য উপকারীঃ

সব ধরণের ত্বকের জন্য মানানসই।

নোটঃ

১)সপ্তাহে ২-৩ বার ব্যবহার করতে পারবেন।

২) তৈলাক্ত ত্বকের বন্ধুরা অলিভ অয়েলের পরিবর্তে লেবুর রস ব্যবহার করবেন।

লেবুর রস

৩.হলুদ ও কফির ফেইসপ্যাকঃ

সবধরণের  ত্বকের জন্য হলুদ ও কফির ফেইসপ্যাকটি সমানে উপকারিতা দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। এটি যে কোন ত্বকের কালো রংকে মুছে দিয়ে ত্বককে তরুণ।উজ্জ্বল ও সুস্থ্য করে তুলে । বিভিন্ন ত্বক সমস্যার কারণে সৃষ্ট ত্বকের জ্বালা কমিয়ে আনতে সাহায্য করবে এই ফেসপ্যাক।

প্রয়োজনীয় উপাদানঃ

  • কফি পাউডার – ২ চামচ
  • হলুদ  গুড়া      – ২ চামচ
  • টক দই          – ২ চামচ

ফেসপ্যাক কিভাবে তৈরী ও ব্যবহার করবেনঃ

ত্বক ফর্সা করার সেরা ফেসপ্যাক

ধাপঃ

১) একটি পরিস্কার বাটিতে কফি পাউডার, হলুদ গুড়া ও টক দই নিয়ে খুব ভাল করে উপাদানগুলো মিশিয়ে নিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন।

২) চোখ ও ঠোঁট ব্যাতিত সারা মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন।

৩) ১৫ মিনিট পর পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন ।

কাজ করার কারণঃ

হলুদঃ

হলুদ ত্বকের কালো রং দূর করে ত্বককে ফর্সা করার দায়িত্ব নিজের কাধে তুলে নিয়েছে এবং ত্বকের সমস্ত ইনপ্লেমেশন অর্থাৎ জ্বালা দূর করে দেয়।

দইঃ

অ্যান্টি-এইজিং (Anti-aging) ক্ষমতার অধিকারী দই ত্বকের বুড়িয়ে যাওয়া রোধ করে ত্বককে প্রাকৃতিক ভাবে উজ্জ্বলতা দিয়ে থাকে। দইয়ের মধ্যে আরো আছে রাইবো ফ্লেবিন যা ত্বকে নতুন কোষের বৃদ্ধি বাড়িয়ে ত্বককে সুস্থ্য ও উজ্জ্বল করে তুলে।

টক দই

কোন ত্বকের জন্য উপকারীঃ

সব ধরণের ত্বকের জন্য মানানসই।

নোটঃ

১) সপ্তাহে ২-৩ বার ব্যবহার করুন।

যে কোন ত্বকের অধিকারি বন্ধুরা ত্বকের যত্নে কফি ব্যবহার করতে পারেন। খুব অল্প সময়ের মধ্যে স্বল্প খরচে আপনারা নিজের ত্বকের যত্ন নিতে পারবেন সহজেই আর সেটা ঘরের মধ্যে বসেই। এবার আপনাদের আর কোন পার্লারে দৌড়াতে হবেনা যদি আপনারা নিজেরাই সঠিকভাবে নিজেদের ত্বকের যত্ন নিতে জানেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here