ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে খাদ্য তালিকায় যেসব খাবার রাখা জরুরি

0
6548
ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে খাদ্য তালিকায় যেসব খাবার রাখা জরুরি

ত্বকের যত্নে আমরা নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকলেই অত্যন্ত সতর্ক এবং সেনসেটিব। যেভাবেই হোক নিজেদের ত্বককে সুস্থ এবং সুন্দর রাখতে আমরা অনেক প্রচেষ্টায় করে থাকি। ত্বককে উজ্জ্বল এবং কথা রাখতে টাকা খরচ করেও বিভিন্ন ধরনের প্রসাধনী এবং ফেসিয়াল ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু বিভিন্ন গবেষক এবং বিউটিশিয়ানদের পরামর্শ হচ্ছে ত্বকের যত্নে কৃত্রিম প্রসাধনী ব্যবহারের চেয়ে খাবারের প্রতি যদি লক্ষ রাখা যায় তাহলে অধিকতর ভাল ফল পাওয়া যায়।

সিজারের পর ওজন কমানোর উপায়

কারণ খাবার ভেতর থেকে আপনার ত্বকের পুষ্টি যোগায় এবং  সম্পূর্ণ স্থায়ী ভাবে ত্বক কে উজ্জ্বল করে তোলে । তাই কৃত্রিম প্রসাধনীর চাইতে ত্বকের গভীর থেকে পুষ্টি উপাদান অধিক জরুরি। আর কিছু খাবারের মাধ্যমে ত্বকের জন্য সে সকল পুষ্টি উপাদান যোগান দেয়া সম্ভব। তাহলে চলুন বন্ধুরা দেখে নেয়া যাক এমন কিছু খাবার যা ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে অত্যন্ত কার্যকরী।

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে খাদ্য তালিকায় যেসব খাবার রাখা জরুরিঃ

 গাজরঃ

  গাজরে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে বিটা ক্যারোটিন। যা আমাদের শরীরে ভিটামিন এ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। গাজর ত্বকের টিস্যুসমূহ কে সুস্থ রাখে এবং সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে ত্বককে পুড়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করে । তাই নিয়মিত গাজর খেলে আপনার ত্বক থাকবে সতেজ, সজীব, উজ্জ্বল এবং ফর্সা।

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে  গাজর

  কলাঃ

 কলা বাহ্যিকভাবে যেমন ত্বক উজ্জ্বল করার  জন্য যেমন  উপকারী। তেমনি অভ্যন্তরীণভাবে ও ত্বক এবং স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী। কলাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ।  যা ত্বকের মলিন ভাব দূর করে ত্বককে উজ্জ্বল এবং ফর্সা করে তুলে।

 ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে কলা

 বাদামঃ

  বাদামে রয়েছে ভিটামিন ই ফ্যাটি এসিড এবং ওমেগা থ্রি। যা আমাদের ত্বককে উজ্জ্বল এবং কোমল রাখতে অত্যন্ত কার্যকরী। তাই ত্বককে উজ্জ্বল এবং ফর্সা রাখতে নিয়মিত খাদ্য তালিকায় বাদাম রাখা অত্যন্ত জরুরী।

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে বাদাম,

ভিটামিন সি যুক্ত ফলঃ

  ভিটামিন সি যুক্ত ফল ত্বককে সজীব সতেজ এবং সুস্থ রাখতে অত্যন্ত কার্যকরী। লেবু আনারস ইত্যাদি ভিটামিন সি যুক্ত ফল নিয়মিত খাদ্যতালিকায় রাখুন থাকবে দাগমুক্ত উজ্জ্বল এবং ফর্সা। ভিটামিন সি যুক্ত ফল সমূহ ত্বকের যৌবন ধরে রাখতে সহায়তা করে।

মুখের কালো ছোপ দূর করার উপায়

 জিরাঃ

  আমাদের শরীরে   বিভিন্ন ধরনের দূষিত পদার্থ জমে থাকে। এরূপ দূষিত পদার্থের পরিমাণ অতিরিক্ত বেড়ে গেলে ত্বকের দাগ এবং গ্রহণের প্রবণতা বেড়ে যায়। তাই নিয়মিত খাদ্য তালিকায় জিরা খেলে আমাদের শরীরের সমস্ত দূষিত উপাদানসমূহ সম্পূর্ণ নির্মূল হয়। এবং ত্বক থাকে  ব্রণ মুক্ত উজ্জল ও ফর্সা।

ওজন কমাতে আদার ভূমিকা

মিষ্টি কুমড়া:

  মিষ্টি কুমড়া স্বাস্থ্যের যত্নে  যেমন উপকারী ঠিক তেমনি ত্বকের যত্নেও অত্যন্ত উপকারী। মিষ্টিকুমড়ায় রয়েছে ভিটামিন এ,এবং  বিটা ক্যারোটিন যা আমাদের ত্বককে সতেজ এবং কোমল রাখতে সাহায্য করে। তাই নিয়মিত খাবার তালিকায় মিষ্টি কুমড়া অবশ্যই রাখবেন।

ত্বক ফর্সা করার গোপন টিপস

  পানিঃ

  ত্বক ভালো রাখতে পানির উপকারিতা অবর্ণনীয়। প্রতিদিন কমপক্ষে দুই থেকে তিন লিটার পানি আমাদের ত্বকের জন্য এবং শরীরের জন্য অত্যন্ত উপযোগী। পানি ত্বককে টানটান রেখে ত্বকের ভাঁজ পড়তে দেয়না। এবং শরীরে চিনি জমতে দেয়না। প্রতিদিন পরিমাণমতো পানি পান করলে পানি আমাদের শরীর থেকে দূষিত উপাদানসমূহ ঘামের মাধ্যমে বের করে দেয়। নিয়মিত পানি সেবন করলে আমাদের ত্বকের গোড়ায় পানি পৌছাই। ফলে আমাদের ত্বক থাকে  সতেজ, সজীব,  প্রাণবন্ত এবং উজ্জল।

শীতকালে পানি পান করার উপকারিতা
পানি পান করার উপকারিতা

ব্রকলিঃ

 ব্রকলি তে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই, সি এবং এন্টি অক্সিডেন্ট উপাদান যা আমাদের ত্বককে গভীর থেকে শক্তি যোগায়। ত্বককে করে তোলে উজ্জল ও ফর্সা। ভিটামিন-ই সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে আমাদের ত্বককে পুড়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করে।

ব্রকলি
ব্রকলি

 মাছঃ

 মাছ আমাদের অভ্যন্তরীণ স্বাস্থ্যের জন্য যেমন উপকারী। ঠিক তেমনি আমাদের বাহ্যিক স্বাস্থ অর্থাৎ আমাদের ত্বককে উজ্জ্বল এবং ফর্সা রাখার জন্য অত্যন্ত কার্যকরী মাছে রয়েছে ওমেগা 3 ফ্যাট।যা আমাদের ত্বকের কোষে  শক্তি যোগায়। মাছে বিদ্যমান বিভিন্ন উপাদান আমাদের ত্বকের ক্যান্সার থেকে রক্ষা করে।

মাছ
মাছ

করলাঃ

 করোলা আমাদের স্বাস্থ্যের পাশাপাশি ত্বকের যত্নে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এতে রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ যা ত্বক কে উজ্জ্বল এবং ফর্সা করতে অত্যন্ত জরুরী। করলা ত্বকের রঙ অসমতার দূর করে। এছাড়াও করলাতে রয়েছে ভিটামিন সি যা কোষ সজীব রাখে।

করলা
করলা

গ্রিন টিঃ

 গ্রীন টি তে রয়েছে এন্টিঅক্সিডেন্ট উপাদানসমূহ।যা  শরীরের বিষাক্ত উপাদান সমূহ বের করে দিতে সাহায্য করে।। তাই নিয়মিত গ্রীন টি পান করলে ত্বকের দাগ কমে যায় এবং ব্রণের সমস্যা দূর হয়।তাই সুস্থ সুন্দর উজ্জ্বল ত্বকের যত্নে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় গ্রিন টি যোগ করে নিন।

পিরিয়ডের সময় গ্রিন টি

আমাদের ত্বকের সৌন্দর্য শুধুমাত্র বাহ্যিক প্রসাধনীর উপরেই নির্ভর করে না। কারণ বাহ্যিক প্রসাধনী আমরা যতক্ষণই ব্যবহার করব ততক্ষণ আমাদের সৌন্দর্য বজায় থাকবে।

তাই নিজেদের  ত্বক কে সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক ভাবে গভীর থেকে স্থায়ীভাবে উজ্জ্বল এবং ফর্সা করার জন্য উপরে উল্লেখিত খাবার সমূহ  প্রতিদিনের  খাদ্য তালিকায় স্থান করে দিন। গভীর থেকে ত্বকের পুষ্টি উপাদানের যোগান দিন। ত্বক কে করে তুলুন সুস্থ, সজীব, উজ্জ্বল, কোমল, মসৃণ এবং প্রাণবন্ত।

 ধন্যবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here